আজ ৯ই কার্তিক ১৪২৭ বঙ্গাব্দ, ২৫শে অক্টোবর ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

নাটক "ভালোবাসি"
নাটক "ভালোবাসি"

ইউটিউবে বাড়ছে মানহীন ,অশ্লীল নাটক ও ভিডিওর সংখ্যা

সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন -

প্রতিবেদকঃ বিপা চৌধু‌রি

বিনোদন বিভাগ

ইউটিউবে বেড়েই চলেছে মানহীন ও অশ্লীল ভিডিওর সংখ্যা। দেশীয় বেশিরভাগ ইউটিউব চ্যানেলগুলোর নিয়ন্ত্রণে নেই কোনো নির্দিষ্ট নীতিমালা। যার ফলে যে যার মতোই বিভিন্ন ভিডিও বানিয়ে প্রকাশ করছে। যার মধ্যে অতিসম্প্রতি ভালবাসা নামে একটি নাটকের অফিসিয়াল ট্রেলার ইউটিউবে আপলোড করা হয়েছে।

২ মিনিট ৫১ সেকেন্ডের ওই ট্রেলারে বস্তাপঁচা কাহিনী দাড় করানো হয়েছে। নায়িকার ভুমিকায় অভিনয় করা তরুনীও নতুন তাকে আগে কখনও মিডিয়াপাড়ায় বিচরন করতে দেখা যায়নি। তাছাড়া বেঢপ শরীরের এক পার্শ্ব অভিনেত্রীকে আনা হয়েছে তার অভিনয়ও তথৈবচ ( যেমন-তেমন)। তাছাড়া ভিলেনের অভিনয়ের ব্যক্তিটির রাস্তা দিয়ে হেটে যাওয়া তরুনীর উদ্দেশ্যে অশ্লীল ও যৌনতায় ভরা বাক্যবান ইভটিজিংকে উৎসাহিত করবে। মূলতঃ কোন নাটক, সিনেমার থ্রি-লার তৈরি হয় ওই নাটক বা সিনেমার চুম্বক কিছু দৃশ্য ও অভিনয় নিয়ে যা থেকে পুরো নাটকের বিষয়টি ফুটে ওঠে।ভালবাসা নামের ইউটিউব নাটকটি এক অর্থে মানহীন বলে মনে হয়েছে। এছাড়া এখন ইউটিউবে প্রবেশ করলেই চোখে পড়ে ‘ভাবীর নজর খারাপ’, ‘দুই বউয়ের জ্বালা’, ‘মোটা বউয়ের ছোট জামাই’সহ অনেক মানহীন ও অশ্লীল নাটক, মিউজিক ভিডিও কিংবা শর্টফিল্ম।

বিজ্ঞাপন, টাচ করুন।

সংখ্যার দিকে যেমন এসব নির্মাণ বাড়ছে, ভিউয়ের দিক থেকেও এগুলো এগিয়ে রয়েছে। আর্থিক সুবিধা ও বেশি ভিউয়ার্সের জন্য এসব ভিডিও প্রকাশ করছে বলে সংশ্লিষ্টরা জানান। এদিকে শর্টফিল্মের নামেও বিভিন্ন অশ্লীল সিরিজ ইউটিউবে দেখা যায়। এগুলোর গল্পের চেয়ে প্রাধান্য থাকে যৌনতা, বিছানার দৃশ্য আর অশ্লীলতায় উস্কানি দেয় এমন সব সংলাপে। দর্শক বিনোদন পাবার আশায় এগুলো দেখে বেশ বিরক্তও হচ্ছে। কিশোর-কিশোরী থেকে শুরু করে তরুণরা এগুলোতে আকৃষ্ট হচ্ছে। ফলে সামাজিকভাবে নতুন প্রজন্মের দারুণ অবক্ষয় হচ্ছে বলেও অনেকের মন্তব্য। জনপ্রিয় অনেক অভিনেতা- অভিন্ত্রেীদের সাথে আলাপকালে তারা জানান ইউটিউব উন্মুক্ত বাজার। তাই বলে তো যার যা খুশি তা প্রকাশ করবে- এমন হয় না। ইউটিউবে এমন মানহীন অশ্লীল গল্পের ভিডিও দেখলে বেশ লজ্জা লাগে। মাঝে মাঝে মনে হয় অভিনয় ছেড়ে দিই। কর্তৃপক্ষদের এই বিষয়গুলোর দিকে গুরুত্ব দেওয়া উচিত। যেভাবে এগুলো বেড়েই চলছে এটি আমাদের সংস্কৃতির জন্য হুমকি। টেলিভিশনে একটা নাটক প্রচার করতে হলে অনেক নিয়মনীতি মেনেই নির্মাণ করতে হয়। ফলে সেটি পরিবার কিংবা অনেকে একসঙ্গে উপভোগ করার সুযোগ পায়।

বিজ্ঞাপন, টাচ করুন।

রাষ্ট্রীয়ভাবে এগুলো নিয়ন্ত্রণের জন্য পদক্ষেপ নেবে সরকার। প্রযুক্তি আমাদের সবকিছু সহজ করে দিয়েছে। বিশ্ব এখন আমাদের হাতের মুঠোয়। সত্যি বলতে আমরা, প্রযুক্তিকে সঠিক ব্যবহার করতে পারছি না। সময়ের সঙ্গে দর্শক এখন ইউটিউবমুখী হয়েছে। এই সুযোগটি ব্যবহার করছে একশ্রেণীর মানুষ। তারা নিজেদের স্বার্থের জন্য দেশের সংস্কৃতির অপব্যবহার করছে। প্রশাসনিকভাবে এগুলোর নিয়ন্ত্রণ প্রয়োজন। যে সকল ইউটিউব চ্যানেল থেকে এ ধরনের অশ্লীল ও মানহীন কনটেন্ট প্রকাশ করবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হোক। তাহলে ক্রমান্বয়ে এগুলো বন্ধ হয়ে যাবে। দর্শক বরারবই রুচিশীল কনটেন্ট দেখতে চায়। কিন্তু আমাদের দেশীয় ইউটিউব চ্যানেলগুলো দর্শকের সে প্রত্যাশা পূরণে বরাবরই ব্যর্থ। এভাবে চলতে থাকলে, টিভি নাটক ও চলচ্চিত্রের দর্শকের মতো আমাদের ইউটিউব দর্শকেরাও ক্রমান্বয়ে বিদেশি নাটক, গান, চলচ্চিত্রের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়বে। দেশীয় সংস্কৃতির হবে বিলুপ্ত। নতুন প্রজন্ম বেড়ে উঠবে পশ্চিমা সংস্কৃতিতে ।

 

—————————

সামাজিক বাস্তবতার উপর নির্মিত কয়েকটি নাটক দেখতে এখানে ক্লিক করুন- https://www.youtube.com/watch?v=UGFSLbHFM1E&list=PLLieECOygnJzmldoORyUpQqqu4A3472ri&index=1

এফএম নিউজ

আপনার এগিয়ে যাওয়ার সঙ্গী

বিজ্ঞাপন+বার্তা বিভাগঃ01831106108


সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করুন -

Leave a Reply

Your email address will not be published.

     আরো কিছু সংবাদঃ

ফেসবুক ও টুইটারে এফএম নিউজ

ক্যালেন্ডার

October 2020
S S M T W T F
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31